চায়নাম্যান বোলিং বৃত্তান্ত

  • by

স্পিন বোলিং সম্পর্কে যারা ক্রিকেট খেলা বুঝেন তাদের নতুন করে বলার দরকার নেই! বেশীর ভাগ ক্রিকেট দর্শক জানেন, লেগ স্পিন এবং অফ স্পিন বোলিং এর কথা। তবে লেফট হ্যান্ডেড বোলারদের মধ্যে যার স্লো বা স্পিন বল করেন ,আজকে তাদের নিয়েই কথা বলব।

লেফট আনঅর্থোডক্স স্পিন যা চায়নাম্যান বোলিং হিসেবে অনেক আগে থেকেই ক্রিকেট জগতে পরিচিতি। মুলত ডান হাতি অফস্পিনার এর বোলিং এর মত এটি টার্ন করে। তবে অনেক ক্ষেত্রে কব্জি বা রিস্ট মারপ্যাঁচের উপর এটি অফস্পিন থেকেও আর নিখুঁতভাবে টার্ন করা যায়। আনঅর্থোডক্স স্পিনের ক্ষেত্রে বলটি পিচ করে বাম দিক থেকে ডানদিকে ছুটে যায়।যদি ডানহাতি ব্যাটসম্যান হয় তখন বলতি স্পিন করে লেগ সাইট বা লেগ স্ট্যাম্পের দিকেই যাবার সম্ভাবনা বেশি। বাম হাতের ব্যাটসম্যান হলে এটি অফ স্ট্যাম্পের দিকেই যাবে।

অন্যদিকে স্লো লেফট অর্থোডক্স বোলিং মুলত ,ডানহাতি অফস্পিনার এর মত আঙ্গুলের সাহায্যে ঘুরানো হয় এবং ফলাফল হিসেবে এটির টার্ন অনেকটাই লেগব্রেক এর মত হয়ে থাকে। অর্থাৎ বলটি স্পিন করে ডান দিক থেকে বাম দিকে অগ্রসর হয়।ব্যাটসম্যান যদি ডানহাতি হয় তবে বলটি পিচ করে অফ স্ট্যাম্প এর বাইরে দিয়ে বেড়িয়ে যায়। লেফট হ্যান্ডেড ব্যাটসম্যানের কাছে এর বিপরীত বিষয়টি ঘটে অর্থাৎ বলটি ভিতরে ঢুকে স্বাভাবিক ভাবে লেগ স্ট্যাম্পের দিক দিয়ে বেড়িয়ে যায়।

নিচের ছবি দুটি দেখুন , বাম দিকের ছবি টি আনঅর্থোডক্স স্পিনের আর ডান দিকের টি লেফট অর্থোডক্সঃ

 

 

 

 

 

 

 

অনেক সময় লেফট আনঅর্থোডক্স স্পিনাররা গুগলির ন্যায় বল করে থাকেন অর্থাৎ লেফট অর্থোডক্স স্পিনারদের ন্যায় বল টার্ন করিয়ে থাকেন কিন্তু অ্যাকশনটি আনঅর্থোডক্স বা চায়নাম্যান হয়ে থাকে।

 

লেফট আনঅর্থোডক্স স্পিন বা চায়নাম্যান বোলিং কিভাবে এলোঃ

মোটামুটি বেশীরভাগ ক্রিকেটবোদ্ধারাই এক্ষেত্রে ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর বেলমন্ট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী এলিস এডগার পুস আচং (ইংরেজি: Ellis Achong; জন্ম: ১৬ ফেব্রুয়ারি, ১৯০৪ – মৃত্যু: ২৯ আগস্ট, ১৯৮৬) চীনা বংশোদ্ভূত ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারকে এই বোলিং স্টাইলের সফল ব্যবহারকারি হিসেবে বিবেচনা করেন। সীমিত টেস্ট ক্যারিয়ারে উনি দক্ষতার সাথে এর সাক্ষর রাখেন। তার সম্মানার্থে এই বিশেষ বোলিং স্টাইল কে “স্লো লেফট-আর্ম চায়নাম্যান” বলা হত।

 

তবে মিঃ এলিস এর পূর্বে দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার চার্লস বেনেট (বাক) লিউইলিন  (ইংরেজি: Charlie Llewellyn; জন্ম: ২৯ সেপ্টেম্বর, ১৮৭৬ – মৃত্যু: ৭ জুন, ১৯৬৪) এই লেফট আনঅর্থোডক্স স্পিন করেছিলেন বলে জানা যায়।তাই এই স্টাইলের পথিকৃৎ মিঃ চার্লস বেনেট কেই ধরে নেয়া যায়। পরবর্তীতে এই স্টাইলকে যুগে যুগে অনেক বোলারই ব্যবহার করেছেন। ডেনিস চার্লস স্কট কম্পটন মুলত ব্যাটসম্যান হলেও বোলিং এর ক্ষেত্রে লেফট আনঅর্থোডক্স স্পিনার হিসেবে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন।তবে দক্ষিন আফ্রিকার পল অ্যাডামস এই চায়নাম্যান বোলিং এর ক্ষেত্রে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন তার বিচিত্র ভঙ্গিমার কারনে।ছবিতে খেয়াল করুন।

যথেষ্ট ছোট খাট এবং শান্তশিষ্ট দেখতে এই মানুষটি কি অদ্ভুত ভাবে মাথা ঝুঁকিয়ে, লাফিয়ে কিভাবে প্রতিবার বল ফেলতেন, যারা দেখেছেন তারাই বলতে পারবেন।

এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ার ব্রাড হগ রিস্ট স্পিনার হিসেবে সফল ছিলেন। রয়েছেন হালের ভারতীয় বোলার কুলদিপ যাদব। মিঃ কুলদিপ বর্তমানে সফলতার সাথে তিনটি ক্রিকেট ফরমেটেই আনঅর্থোডক্স স্পিন করে যাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *